April 16, 2021, 2:40 pm

News Headline :
মতলব উত্তরে সাংবাদিক ও আইনের লোক পরিচয়ে চাঁদা আদায়কালে আটক ৩ মতলব উত্তরে ২ হাজার কেজি জাটকা আটক লকডাউনের কবলে দিশেহারা কচুয়ার নিম্ন আয়ের মানুষ বিধি-নিষেধ মানাতে তৎপর কচুয়া উপজেলা প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী লালমনিরহাটে সাংবাদিককে ফেন্সিডিল দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ, পরে জামিনে মুক্ত মেঘনা একতা যুব সমাজ কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে পাঁচ শতাধিক দিনমজুর মানুষের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ। পলাশে লকডাউনের ৩য় দিনের সাড়াশি অভিযানে ৫ মামলা নরসিংদীতে আরও ১ জনের মৃত্যুসহ নতুন শনাক্ত ৪৫ জন নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা লায়ন এম এ নেওয়াজের উদ্যোগে কেন্দ্রীয় ও চট্টগ্রাম মহানগর সেচ্ছাসেবক লীগের সকল অসুস্থ নেতা-কর্মীদের সুস্থতা কামনায় দোয়া মাহফিল নরসিংদীতে টেইলার্সে হামলায় গুলিবিদ্ধসহ আহত ৪ জন

করোনা মোকাবেলায় নিজ বাড়ি ছেড়ে দেয়ার ঘোষণা দিলেন কণ্ঠ শিল্পী ন্যান্সি

নেত্রকোণা বিশেষ প্রতিনিধি, প্রান্ত চৌধুরী :-
করোনা পরিস্থিতি মহামারি আকার ধারণ করায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত মানুষের সেবা এবং রোগীদের আইসোলেশনে রাখতে নিজের বাড়ি ছেড়ে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন দেশের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি।

সোমবার বিকেল চারটার দিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কণ্ঠশিল্পী নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি। ন্যান্সি জানান, “নেত্রকোণায় নিজের একটি ডুপ্লেক্স বাড়ি আছে। সেই বাড়িটি করোনা রোগী কিংবা যোদ্ধাদের জন্য ছেড়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। যেহেতু বর্তমানে দেশ এক ক্রান্তিকাল সময় অতিক্রম করছে, সে জন্য বাড়িটি জনস্বার্থে ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এতে করে যদি কারো উপকারে আসে তাহলে সেটিই হবে আমাদের জন্য একটি বড় পাওয়া। কারোনা মহামারী থাকা অবস্থায় যতদিন দরকার ততদিন এই বাড়ি জনস্বার্থে প্রশাসন ব্যবহার করতে পারবেন।”

বাড়িটি কিভাবে কাজে লাগবে এমন প্রশ্নের জবাবে ন্যান্সি বলেন, “এ বিষয়ে নেত্রকোণা জেলা প্রশাসক মঈনউল ইসলাম এর সাথে কথা হয়েছে। তিনি কিভাবে বাড়িটি কাজে লাগাবেন তা আমাদের জানাবেন। আমরা বলেছি, এই বাড়িটি করোনা যোদ্ধা চিকিৎসকদের থাকার জন্য কাজে লাগাতে পারেন। আবার অনেকের আইসোলেশনে জায়গা হচ্ছে না সেক্ষেত্রে তারা এই বাড়িটিকে কাজে লাগাতে পারে। এছাড়া চাইলে করোনা ভাইরাসের সংবাদ সংগ্রহে সাংবাদিকগণও এখানে থাকতে পারেন।

কণ্ঠশিল্পী ন্যান্সি আরো বলেন, আমরা একটি যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়েছি। এই যুদ্ধ কতদিন চলবে তা কেউ বলতে পারব না। দেশের মানুষ আজ অসহায়। খাদ্যের জন্য হাহাকার, সুচিকিৎসার অভাব। এই দুঃসময়ে মানুষের পাশে দাঁড়ানো উচিত। আমরা যারা স্বাবলম্বী আছি তাদের সবারই এগিয়ে আসা উচিত। আমার নিজের অনুশোচনার জায়গা থেকে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমার কাছে মনে হয়েছে এই দুঃসময়ে মানুষের পাশে দাঁড়ানো উচিত।

শুধু বাড়ি না, আমার গাড়িটা পর্যন্ত দিয়েছি এই মানবতার সেবায়। এই দুঃসময়ে যদি আমরা মানবিক না হই, তাহলে তো আমরা মনুষ্যত্বহীন মানুষে গণ্য হবো। যতদিন না পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে ততদিন বাড়িটি করোনা যোদ্ধারা ব্যবহার করতে পারবেন বলে জানান ন্যান্সি।”
নেত্রকোণার জেলা প্রশাসক মঈনউল ইসলাম জানান, কণ্ঠশিল্পী ন্যান্সী তার বাড়িটি ব্যবহারের কথা জানিয়েছেন। প্রয়োজন হলে আমরা তা কাজে লাগাবো।

Please Share This Post in Your Social Media

error: Content is protected !!