December 8, 2021, 9:46 pm

News Headline :
আবারও নির্বাচিত হয়ে অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে চান শ্যামল সিদ্দিক ভারতের প্রথম সেনা সর্বাধিনায়ক বিপিন রাওয়াতকে বাঁচানো গেল না ফোর্বসের প্রভাবশালী নারীর তালিকায় শেখ হাসিনা ৪৩তম কচুয়ার আশ্রাফপুর ইউপি নির্বাচনে আ. লীগের প্রার্থী শামীমের মনোনয়ন পত্র জমা চাঁদপুর জেলার সদর ও ফরিদগঞ্জ উপজেলায় ৫টি ইটভাটায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে পাঁচ লক্ষ টাকা জরিমানা আদায় হাতিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে অস্ত্রসহ গ্রেফতার ১ রাউজানে এক ব্যক্তির পাকা ঘর ও জমি ক্রোকবদ্ধ করে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের ম্যজিস্টেট ফুলবাড়ীতে ব্যাংক এশিয়া’র ২২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত। মৌলিক সাক্ষরতা প্রকল্পের দ্বিতীয় পর্যায়ের শিখন কেন্দ্রের উদ্বোধন। উত্তর আলগী ইউনিয়ন নৌকার মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী আতিকুর রহমান কে ফুল দিয়ে বরণ করেন কর্মী সমর্থকরা

চারটি খালসহ ১২টি সেতু-কালভার্টের মূখ ভরাট করে ধীর গতিতে চলছে নির্মান কাজ, রাণীনগরে ভারী বৃষ্টিপাত হলে প্রায় দুই হাজার হেক্টর জমির ধান নষ্টের আশংকা!

কাজী আনিছুর রহমান,রাণীনগর (নওগাঁ) : নওগাঁর রাণীনগর আবাদপুকুর-কালীগঞ্জ আঞ্চলিক মহা সড়কে রক্তদহ বিলের চারটি খালসহ পানি নিষ্কাশনের প্রায় ১২টি সেতু-কালভার্টের মূখ মাটি দিয়ে ভরাট করে ধীর গতিতে চলছে নির্মান কাজ। ফলে যে কোন সময় ভারী বৃষ্টিপাত হলে পানিতে তলে রক্তদহবিল এলাকার প্রায় দুই হাজার হেক্টর জমির ধান নষ্টের আশংকা করছেন কৃষকরা। ফসল বাঁচাতে দ্রæত নির্মান কাজ শেষ করে খালসহ সেতু-কালভার্টের মূখ খুলে দেয়ার দাবি জানিয়েছেন তারা।
জানাগেছে,রাণীনগর গোল চত্বর থেকে আবাদপুকুর হয়ে কালীগঞ্জ পর্যন্ত প্রায় ২২ কিলোমিটার আঞ্চলিক মহাসড়ক নতুন করে মজবুত পাকা করণ ও প্রসস্ত এবং ৪টি সেতু ও ২৩ টি কালভার্ট ভেঙ্গে নতুন করে নির্মান কাজের টেন্ডার দেয়া হয়। সড়ক ও সেতু-কালভার্ট নির্মান করতে ব্যয় ধরা হয় ১০৫ কোটি টাকা। গত ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে টেন্ডার শেষে কাজ শুরু করলে প্রথম দিকে শুধু মাত্র চারটি সেতু ও ৫/৬টি কালভার্ট ভেঙ্গে কাজ শুরু করে।সেতু-কালভার্ট ও সড়ক পাকা করণে এসব কাজের সময় সিমা প্রাথমিকভাবে ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত নির্ধারণ করা হলেও পরে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান আবেদন করে চলতি বছরের ৮ মে থেকে জুলাই পর্যন্ত সময় নেয় । বছরের পুরো শুষ্ক মৌসুম পার হয়ে গেলেও সেতু কালভার্টের কাজ না করে এখন এসে রক্তদহ বিল থেকে বয়ে আসা রতনডারী খাল,রক্তদহ খাল,সিম্বা খাল ও করজগ্রাম খালের মূখসহ ১২ টি সেতু কালভার্টের মূখ মাটি দিয়ে ভরাট করে বন্ধ রেখে পার্শ্বরাস্তা নির্মান করে ধীর গতিতে চলছে নির্মান কাজ। ইতি মধ্যে দুই/একটি কালভার্টের কাজ শেষ হলেও কয়েকটি কালভার্ট এখনো ভাঙ্গা হয়নি। আবার যেগুলো ভাঙ্গা হয়েছে সেগুলোর কাজ চলছে খুব ধীর গতিতে। রক্তদহ বিলের চারে দিকে রাণীনগরের অংশ,সান্তাহার ও বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার অংশ মিলে প্রায় দুই হাজার হেক্টর জমিতে ইরি/বোরো ধান রয়েছে। আগাম জাতের বেশ কিছু ধানের শীষ বের হতে শুরু করেছে। বিল থেকে পানি নিষ্কাশন বা বের হওয়ার সবগুলো পথ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় যে কোন সময় ভারী বৃষ্টিপাত হলে বিল এলাকার প্রায় দুই হাজার হেক্টর জমির ধান পানির নিচে তলে নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশংকা করছেন কৃষকরা। কৃষকরা বলছেন সবগুলো সেতু-কালভার্টের মূখ খোলা অবস্থায় থাকাকালে ধান কাটার শেষ সময়ে ভারী বৃষ্টিপাতে নিচু এলাকার ধান পানিতে তলে নষ্ট হওয়ার উপক্রম দেখা দেয়। এর মধ্যে বিল থেকে পানি নিষ্কাশনের সবগুলো খাল,সেতু-কালভার্টের মূখ মাটি দিয়ে বন্ধ করেছে,যে কোন সময় ভারী বৃষ্টিপাত হলে ফসল ঘরে তোলার কোন সুযোগ থাকবেনা ।
বিলপালশা গ্রামের কৃষক সাইদুর রহমান,বিলকৃষ্ণপুর গ্রামের আব্দুল মমিন,সিম্বা গ্রামের নাছির উদ্দীন,রাজাপুর গ্রামের হবিবর রহমানসহ প্রায় অর্ধশত কৃষকরা বলেন,রাণীনগর উত্তর-পূর্বাঞ্চল,বগুড়ার আদমদীঘি এবং সান্তাহার অঞ্চলসহ আশে পাশের এলাকা থেকে পানি এসে রক্তদহ বিলে জমা হয়। এই পানি চারটি খাল এবং ১২টি সেতু-কালভার্ট দিয়ে বের হয়ে যায়।পানি বের হওয়ার সবগুলো পথ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। যে কোন সময় বৃষ্টিপাত হলে হাজার হাজার হেক্টর জমির ধান পানির নিচে তলে নষ্ট হয়ে যাবে। তাই ধান ও কৃষকদের বাঁচাতে দ্রæত কাজ শেষ করে খাল,সেতু-কালভার্টের মূখ খুলে দেয়ার দাবি জানিয়েছেন কৃষকরা।
রাণীনগর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ শহিদুল ইসলাম কৃষকদের এমন প্রবল আশংকার কথা স্বীকার করে বলেন, খুব দ্রæততম সময়ের মধ্যে সেতু-কালভার্টের মূখ খুলে না দিলে বৃষ্টিপাতে ধানের ব্যপক ক্ষতি হবে। এব্যাপারে স্থানীয় এমপি মহোদয় এবং উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানিয়েছি।
নওগাঁ জেলা সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী হামিদুল হক বলেন, করোনা ভাইরাসের কারনে কাজ পিছিয়ে গেলো। তার পরেও সমস্যা হবেনা জানিয়ে তিনি বলেন, প্রতিটি সেতু-কালভার্টের মূখে মাটির নিচ দিয়ে পানি নিষ্কাশনের জন্য পাইপ দেয়া আছে।যদিও সে রকম অবস্থা দেখা যায় তাহলে পানি নিস্কাশনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।#
কাজী আনিছুর রহমান
রাণীনগর,নওগাঁ

Please Share This Post in Your Social Media

error: Content is protected !!