April 17, 2021, 9:15 pm

নরসিংদীতে কৃষকদের ধান কাটায় “মানবতার হাত” গ্রুপের সাথে অংশ নেয় পুলিশ

ইসমাইল মোল্লা, নরসিংদী থেকে : নরসিংদী সদর উপজেলর নজরপুর ইউনিয়নে একটি সামাজিক সংগঠন “মানবতার হাত”। দেশের এই করুন পরিস্থিতিতে বুদিয়ামারা গ্রামের একদল ছাত্র সমাজ সম্মিলিত হয়ে চলতি বছরের মার্চের শেষের দিকে “মানবতার হাত” নামক সংগঠন প্রতিষ্ঠা করেন। দেশের এমন বিরূপ পরিস্থিতি দেখা দেওয়ায় তারা সারাদিন রোজা রেখে ৪-৫ দিন যাবত অসহায় কৃষকের পাঁকা ধান কেটে যাচ্ছে। তাদের কাজে কৃষক এবং এলাকাবাসী খুব খুশি থাকছেন। সোমবার (৪ মে) মানবতার হাতের ডাকে সাড়া পেয়ে সংগঠনের সাথে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব বাদল সরকার, জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, সদর সার্কেল শাহেদ আহমেদ, অফিসার ইনর্চাজ, নরসিংদী মডেল থানা মোঃ সৈয়দুজ্জামান, ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মোহাম্মদ আতাউর রহমান, ইন্সপেক্টর (অপারেশন্স) মোহাম্মাদ তোফাজ্জল হোসেন-সহ নজরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব বাদল, পুলিশ সদস্য ও মানবতার হাত সংগঠনের সদস্যগণ ধান কাটায় অংশ নেন। নজরপুর ইউনিয়নের কালাই গোবিন্দ পুরের এক গরিব অসহায় কৃষক দুলাল মিয়ার প্রায় ৪৫ শতাংশ জমির ধান কেটে মাড়াইও করে দেন।
এতে কৃষক দুলাল মিয়া বলেন, আমি অনেক উপকৃত হয়েছি। দেশের ক্লান্তি লগ্নে যখন পাঁকা ধান নিয়ে বেশ চিন্তিত হয়ে গেলাম,এমন সময় এলকার “মনাবতার হাত” নামক সংগঠনটি আমার সাথে যোগাযোগ করে। তাদের সাথে নরসিংদী পুলিশ সদস্যরাও এলাকার চেয়ারম্যান সাহেব এসে আমার ধান কেটে দেয়। তাদের এমন মহৎ কাজে আমি খুব খুশি হয়েছি। অবশেষে ধন্যবাদ জানালেন, মানবতার হাত সংগঠকে ও নরসিংদী জেলা পুলিশ সদস্যদের।
সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ইসমাইল মোল্লা জানান, দেশের ক্লান্তি লগ্নে আমরা মানবতার হাত সংগঠকে নিয়ে দেশের কৃষকদের উপকার করতে পেরে আমরা খুব খুশি। আমাদের কাজে সন্তুষ্ট হয়ে ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নরসিংদী জেলা পুলিশ সদস্যরাও এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তি ছুটে চলে আসেন মানবতার হাত গ্রুপকে উৎসাহিত করার জন্য। ধন্যবাদ জানাই নরসিংদী জেলা পুলিশ ও চেয়ারম্যান মহোদয়কে।
তিনি আরও বলেন, কৃষক বাঁচলে বাঁচবে দেশ,এই স্লোগানকে সামনে রেখে আমরা এগিয়ে যেতে চাই। আমার ফ্রেন্ড সার্কেল ও ছোট ভাইদের নিয়ে এ সংগঠনটি আমরা প্রতিষ্ঠা করি সমাজ সেবামূলক কাজ করার জন্য।
প্রতিষ্ঠাতা সদস্যদের মধ্যে আশরাফুল ইসলাম, ইসমাইল মোল্লা, তানভীর মোল্লা, মুছা ইব্রাহিম ও সোহেল সিকদার সহ আরো বেশ কয়েকজন। আমরা এই পর্যন্ত ১৮ থেকে ২০ জন সদস্য নিয়ে ৯ জন কৃষকের প্রায় ১৩ বিঘা জমির ধান কেটে দিতে পেরেছি। আমাদের এ কাজ অব্যহত থাকবে।ইনশাআল্লা।

Please Share This Post in Your Social Media

error: Content is protected !!