April 11, 2021, 4:03 pm

মোহনগঞ্জের মেয়ের এএসপি থেকে এবার ম্যাজিস্ট্রেট হয়ে উঠার গল্প!

নেত্রকোনা বিশেষ প্রতিনিধি, প্রান্ত চৌধুরী:-
নেত্রকোনার মোহনগঞ্জের সেই ছাত্রীর
এএসপি হয়ে উঠার গল্পটি হয়তো অনেকেরই জানা। ৩৬তম বিসিএসে এএসপি হয়ে ওঠা মোহনগঞ্জের সেই মেয়েটি এখন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হয়েছেন। এএসপি পদ ছেড়ে ৩৭তম বিসিএসে সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হয়ে ওঠার গল্প শুনবো আজ।

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জের মেয়ে মেশকাতুল জান্নাত ছোটবেলা থেকেই মেধাবী। সুপার ট্যালেন্ট এই ছাত্রী সবখানেই পেয়েছেন সফলতা। রাবেয়া জান্নাত জানালেন, ৩৬তম বিসিএসে সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) পদে পুলিশ হেডকোয়াটারে কর্মরত ছিলেন। পরে আবার ৩৭তম বিসিএসে সহকারী কমিশনার হিসেবে গ্যাজেটেড হয়ে ঢাকা বিভাগে সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে ন্যস্ত হয়েছেন। তিনি মোহনগঞ্জ পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রী।

সংসার জীবন ছাপিয়ে এভাবেই একের পর এক সফলতা বয়ে এনে নিজের ক্যারিয়ারকে করে তুলেছেন অনুকরণীয়। আলোকিত করেছেন মোহনগঞ্জ তথা নেত্রকোনাকে। সফল এ ছাত্রীর সাথে কথা হলে জানা যায় জীবন পথে বাবা-মা, শিক্ষক ও মুরব্বীদের দোয়াকে সফলতার পাথেয় মনে করেন তিনি। নিজের চেষ্টা আর আল্লাহ্‌র অশেষ রহমত তাকে এ পর্যন্ত নিয়ে এসেছে বলেও মনে করেন তিনি।

জীবনে কাউকে আদর্শ মনে করেন কিনা প্রশ্নের জবাবে জানান, দোয়া করবেন যেন দেশকে সেরা সেবাটাই দিতে পারি। তবে শিক্ষক ও মুরুব্বীদের পাশাপাশি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সচিব জনাব সাজ্জাদুল হাসান স্যার তার আদর্শ। কেননা তিনি তার উপর ন্যস্ত গুরু দায়িত্বের পাশাপাশি জেলার জন্য যা করে যাচ্ছেন তা অনন্য ও আমাদের নতুনদের ভবিষ্যতের জন্য অনুকরণীয়।

মোহনগঞ্জের এই কৃতী ছাত্রী মেশকাতুল জান্নাত রাবেয়া এর আগেও জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা (এনএস আই) এর সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করেন এবং ৬ মাসের বুনিয়াদি প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করে ১ম স্থান অর্জন করেন। সেখানে কাজ করার সময় বাংলাদেশ ব্যাংকে চাকরি হলেও সেখানে যোগদান করা হয়ে উঠেনি।

মেধাবী ওই ছাত্রী মোহনগঞ্জ সরকারি পাইলট স্কুল থেকে এসএসসি পাশ করে ময়মনসিংহের সৈয়দ নজরুল কলেজ থেকে জিপিএ ৫ নিয়ে এইচএসসি পাশ করেন। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় ১৮৯তম মেধাস্থান করে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগে ভর্তি হন। ঢাবি থেকে প্রথম শ্রেণি পেয়ে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি সম্পন্ন করেন।

তিনি মোহনগঞ্জ মাইলোরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুই বার জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক (অবসরপ্রাপ্ত) জনাব মোঃ আব্দুল মমিনের বড় মেয়ে। স্নাতকোত্তর করার সময় বাংলাদেশ ব্যাংক কর্মকর্তার সঙ্গে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় জান্নাতের।

সংসার সামলে তিনি সকল চাকরি পরীক্ষায় অবতীর্ণ হয়ে অত্যন্ত মেধার সঙ্গে একের পর এক সফলতা বয়ে নিয়ে আসেন। কোন প্রকার কোটা ছাড়াই নেত্রকোনা মোহনগঞ্জের এই মেয়ে মেধার স্ফুরণ ঘটিয়ে চলেছেন কর্মক্ষেত্রে।

Please Share This Post in Your Social Media

error: Content is protected !!