লড়াই করে হেরে গেল বাংলাদেশ

ভারতের  মতো শক্তিশালী দলের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মতো গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে লড়াই করে হেরে গেল বাংলাদেশ। বুধবার (২ নভেম্বর) অ্যাডিলেডে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ভারতকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় বাংলাদেশ। বিরাট কোহলি ও লোকেশ রাহুলের জোড়া ফিফটি আর সূর্যকুমারের ৩২ রানের ঝড়ো ইনিংসের সুবাদে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৮৪ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে ভারত।

জয়ের লক্ষ্যে ১৮৪ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর তাড়া করতে গিয়ে বাংলাদেশকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন লিটন কুমার দাস। লিটনের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে প্রথম ৭ ওভারে ৬৬ রান করে বাংলাদেশ। এরপর শুরু হয় বৃষ্টি। বৃষ্টির কারণে কার্টল ওভারে খেলার দৈর্ঘ কমে হয় ১৬ ওভার। বাংলাদেশের লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৫১ রান। প্রথম ৭ ওভারে ৬৬ রান করায় শেষ ৯ ওভারে বাংলাদেশের প্রয়োজন ছিল ৮৫ রান। ২১ বলে ফিফটি তুলে নেন নেওয়া লিটন বৃষ্টির আগে ২৬ বলে ৫৯ রানে অপরাজিত ছিলেন।

বৃষ্টির পর খেলতে নেমে সুবিধা করতে পারেননি বাংলাদেশ। কোনো উইকেট না হারিয়ে ৬৮ রান করা দলটি এরপর মাত্র ৪০ রানের ব্যবধানে ৬ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে কার্যত ছিটকে যায়। দলীয় ৬৮ রানে রান আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন লিটন। তার আগে ২৭ বলে সাত চার আর ৩ ছক্কায় করেন ৬০ রান। লিটন আউট হওয়ার পর পথ হারায় বাংলাদেশ। লিটনের পর উইকেটে বেশি সময় স্থায়ী হতে পারেননি আরেক ওপেনার নাজমুল হোসেন শান্ত। ২৫ বলে ২১ রানে ফেরেন তিনি। এরপর ১২ বলে ১৩ আর ৫ বলে ৪ রানে ফেরেন সাকিব আল হাসান ও আফিফ হোসেন।

১২.৫ ওভারে ১০৮ রানে লিটন, শান্ত, আফিফ, সাকিব, ইয়ারিস ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে কার্যত ছিটকে যায়। তবে শেষ ওভারে প্রয়োজন ছিল ২০ রান। নুরুল হাসান সোহান ছক্কা মেরে শেষ মুহূর্তে জয়ের স্বপ্ন জাগিয়ে তুলেছিলেন। তবে বাংলাদেশ থামে ১৬ ওভারে ৬ উইকেটে ১৪৫ রানে। অবশেষে ৫ রানে হেরে গেলো বাংলাদেশ।

এর আগে ব্যাট করে বিরাট কোহলি ও লোকেশ রাহুলের জোড়া ফিফটিতে ভর করে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৮৪ রান করে ভারত। দলের হয়ে ৪৪ বলে ৮ চার আর এক ছক্কায় সর্বোচ্চ ৬৪ রান করেন সাবেক অধিনায়ক বিরাট কোহলি। টুর্নামেন্টের শুরু থেকে অফ ফর্মে থাকা লোকেশ রাহুল বাংলাদেশের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে নেমেই তাণ্ডব শুরু করেন। ৩২ বলে তিন চার আর ৪টি ছক্কার সাহায্যে ৫০ রান করা রাহুলকে ফেরান সাকিব।

সাম্প্রতিক সময়ে দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন সূর্যকুমার যাদব। ভারতীয় এই তারকা ব্যাটসম্যানকে বোল্ড করে সাজঘরে পাঠান সাকিব। তার আগে ১৬ বলে চারটি বাউন্ডারির সাহায্যে ৩২ রান করেন সূর্যকুমার। বিরাট কোহলি ও লোকেশ রাহুলের জোড়া ফিফটি আর সূর্যকুমারের ৩২ রানের ঝড়ো ইনিংসের সুবাদে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৮৪ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে ভারত।

বাংলাদেশ দলের হয়ে ৪ ওভারে ৪৭ রান খরচ করে ৩ উইকেট নেন তরুণ পেসার হাসান মাহমুদ। ৩৩ রানে ২ উইকেট নেন অধিনায়ক সাকিব।

প্রসঙ্গত, ভারতের কাছে এই হারে সেমির দরজা এক প্রকার বন্ধই হয়ে গেল বাংলাদেশের। হারলেও লড়েছে এই শান্তনাটুকু শুধু সঙ্গী। এর আগে ২০১৫ সালে এই অ্যাডিলেড ওভালেই ইংল্যান্ডকে হারিয়ে ওয়ানডে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল খেলা নিশ্চিত করেছিল বাংলাদেশ। তবে সুখস্মৃতির মাঠে ইতিহাসটাই বাংলাদেশকে মনে করিয়ে দিল ভারত। টি-টোয়েন্টির দ্বৈরথে ১২ লড়াইয়ে ১১টিতেই হার বাংলাদেশের। কিন্তু অনাহুত বৃষ্টিতেই আজ সর্বনাশ! না হলে ভারত বধের গল্পটা লেখা হয়ে যেতে পারতো অ্যাডিলেড ওভালে। যেখানে রূপকথার গল্প লেখার কথা সেখানে বৃষ্টি শেষে কাঁদল বাংলাদেশ! এই অ্যাডিলেড ওভালেই ৬ নভেম্বর টাইগাররা লড়বে পাকিস্তানের সঙ্গে!

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আজকের দিন-তারিখ
  • মঙ্গলবার (সন্ধ্যা ৭:১৭)
  • ৬ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • ১২ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি
  • ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ (হেমন্তকাল)
পুরানো সংবাদ
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১