June 27, 2022, 11:43 pm

News Headline :
রাউজানে ৩৫ হাজার গাছের চারা বিতরণ পাকুন্দিয়া বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা গোল্ডকাপ প্রাথমিক ফুটবল টুর্নামেন্ট অল্প সময়েই আজকের পত্রিকা পাঠক সমাজে স্থান করে নিয়েছে বীরগঞ্জে আজকের পত্রিকার প্রথম বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি নবাবগঞ্জে আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের উপজেলা টাস্কফোর্স কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হাজীগঞ্জের পালিশারা উচ্চ বিদ্যালয়ে অনুমতি ছাড়াই নাম মাত্র মূল্যে গাছ বিক্রয়ের অভিযোগ সুজিত রায় নন্দীর পক্ষ থেকে প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা, চুন্নু সরকারের কবরে ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন নরসিংদীতে বাড়ছে করোনারোগী, একদিনে শনাক্ত ১১ জন পলাশে মাদকদ্রব্য অপব্যবহার রোধকল্পে কর্মশালা পদ্মা সেতু নিয়ে ষড়যন্ত্রকারীদের চিহ্নিত করা দরকার: হাইকোর্ট ফুলবাড়ীতে শহর সমন্বয় কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

ফুলবাড়ীতে পৌর কাউন্সিলের বিরুদ্ধে মানববন্ধনের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

 

মেহেদী হাসান, ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:
সরকারি ভূমি দখলকারী আখ্যা দিয়ে দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে পৌর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাজেদুর রহমানের বিরুদ্ধে মাঠদখলের মিথ্যা অভিযোগে মানববন্ধনের প্রতিবাদে গতকাল শনিবার সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বেলা সাড়ে ১১টায় ফুলবাড়ী প্রেসক্লাব সভাকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন পৌর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. মাজেদুর রহমান।
এসময় উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম আকন্দ, সহকারী শিক্ষক মোশাররফ হোসেন মন্ডল, মোকলেছুর রহমান, শফি উদ্দিন মন্ডল, আব্দুল খালেক, রেজওয়ানুর রশিদ রানাসহ সাংবাদিকবৃন্দ প্রমুখ।
লিখিত বক্তব্যে ওয়ার্ড কাউন্সিল মাজেদুর রহমান বলেন, গত ২৫ মে ফুলবাড়ী উপজেলা পরিষদ চত্বরে আমার বিরুদ্ধে সরকারি জমি মাঠ দখলের মিথ্যা অভিযোগে মানববন্ধন হয়েছে। গ্রামবাসীর একাংশ ভুল তথ্য দিয়ে আমাকে সামাজিকভাবে হেয় করা হয়েছে। আমি ও আমার পরিবারের লোকজনরা বিনিময় দলিলমূলে সুজাপুর মৌজার ১৯২ সি.এস, এস.এ ২৬২ ও ২৬৬ খতিয়ানে ১৮১৬ দাগে মোট ২ দশমিক ৭৮ একর জমি প্রাপ্ত হই। ১৯৬৪ সাল থেকে আমি সেই জমি ভোগদখল করে আসছি। চলতি ১৪২৯ বাংলা সন পর্যন্ত খাজনাও পরিশোধসহ নিজ নামে মাঠ পর্চাও আছে। খতিয়ান-৯৫০৫, বর্তমান দাগ ৯৫১৮, ৯৫১৯, ৯৫২০ মোট সম্পত্তি ২ দশমিক ৭৮ একর। এসব জেনেও একটি কুচক্রীমহল একতরফাভাবে ওই জমিকে খাস বলে প্রচার করছে। যা সম্পূর্ণ রূপে মিথ্যে কারণ তাদের জমির দাগ ১৮১৫। আমার জমির দাগ নং ১৮১৬।
বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবগত করলে গত ২ এপ্রিল উপজেলা সার্ভেয়ার, পৌর সার্ভেয়ারসহ আশপাশের জমি মালিক ও শ্মশান কমিটির উপস্থিতিতে ১৮১৬ দাগের সীমানা নির্ধারণ ও নকশা করে দেন। প্রশাসন আমার জমির সীমানা নির্ধারণ করে দিলে আমি উক্ত জমিতে ধৈঞ্চা চাষ ও গাছ রোপন করি।
তিনি আরো বলেন, কিছু অসাধু মহল গ্রামের সহজসরল লোকজনকে ভুল বুঝিয়ে আমার বিরুদ্ধে মানববন্ধন করতে উৎসাহিত করছে। তারা ১৮১৬ দাগে খাসজমি হিসেবে উপস্থাপন করছে। আমি একজন নির্বাচিত কাউন্সিল। মূলত সমাজের কাছে আমার ও আমার পরিবারের সুনাম ক্ষুণœ করতেই এলাকার কুচক্রীমহল কথিত মানববন্ধন করেছে৷ আমি এই কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। ওই কুচক্রীমহলের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার বিষয়টি বিবেচনায় রয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন


© All rights reserved © greenbanglanews.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD