উরকিরচরে মিলন দেওয়ানজির পৈতৃক বসতভিটার দাগ বসিয়ে রেজিষ্ট্রারী নেওয়ার অভিযোগ

 

রাউজান (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ

রাউজান উপজেলার ১২ নং উরকিরচর ইউনিয়নের দেওয়ানজী ঘাট এলাকার বাসিন্দা মৃত নগেশ চন্দ্র দেওয়ানজির পুত্র মিলন দেওয়ানজি অভিযোগ করে বলেন একই এলাকার প্রতিবেশী মৃত প্রফুল্লা কুমার বিশ্বাসের পুত্র মনোরঞ্জন বিশ্বাস মিলন দেওয়ানজীর পৈতৃক জমি ক্রয় করার সময়ে জমির দাগ না বসিয়ে বসতবাড়ীর দাগ বসিয়ে রোজিষ্ট্রারী নেয়।গত ২০১৮ সালের ১ মার্চ মিলন দেওয়ানজীর কাছ থেকে জমি ক্রয় করার জন্য মনোরঞ্জন বিশ্বাস ২শতক জমি এক লাখ ৫০ হাজার টাকা মূল্য ধার্য করিয়া বায়না নামা করেন। মনোরঞ্জন বিশ্বাস পরবর্তী বায়না নামা মুলে জমি ক্রয় করার সময়ে মিলন দেওয়ানজির পৈতৃক বসতবাড়ী ও ঘরের দাগ বসিয়ে মিলন দেওয়ানজির কাছ থেকে ৪শতক ২কন্ট রেজিষ্ট্রারী করে নেয়। পরবর্তী মিলন দেওয়ানজি বিষয়ে অবগত হওয়ার পর মনোরঞ্জন বিশ্বাসের বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম জেলা ৩ যুগ্ন জেলা জজ আদালতে মামলা দায়ের করেন।মামলাটি আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।মিলন দেওয়ানজীর অভিযোগ প্রসঙ্গে মনোরঞ্জন বিশ্বাস এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা।আমার পৈতৃক বসতবাড়ী সহ তিন একরের বেশী জমি হালদা নদীর ভাঙ্গনে বিলিন হয়ে গেছে।গত ২০১৮ সালে ৫লাখ ৯২ হাজার টাকা দিয়ে আমি মিলন দেওয়ানজী ৪শতক দুই কন্ট জমি আমার কাছে বিক্রয় করে।রাউজান উপজেলা সাব রোজিষ্ট্রার অফিসে মিলন দেওয়ানজি উপস্থিত হয়ে জমি রেজিষ্টারী দেয়।আমার বসতঘর না থাকায় মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রনালয় থেকে সরকার আমাকে একটি পাকা ঘর নির্মান করে দেওয়ার জন্য উদ্যোগ নেয়। আমার ক্রয় করা জমিতে সরকারের দেওয়া পাকা ঘর নির্মান করতে ঠিকাদার গেলে আমি আমার ক্রয় করা জমি ঠিকাদারকে দেখিয়ে দিলে মিলন দেওয়ানজী ও তার ভাই স্বপন দেওয়ানজী আমার ক্রয় করা জমি নিয়ে বিভিন্ন রকমের মিথ্যা অজুহাত তুলে সরকারের দেওয়া পাকা ঘর নির্মান করতে বাধা সৃষ্টি করে।এ ব্যাপারে স্থানীয় মেম্বার মনির বলেন, দুই পক্ষকে ডেকে সমস্যা সমাধানের জন্য আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর সালিসি বৈঠকের তারিখ দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আজকের দিন-তারিখ
  • বুধবার (সন্ধ্যা ৬:৫১)
  • ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • ২রা রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি
  • ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ (শরৎকাল)
পুরানো সংবাদ
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০