December 8, 2021, 4:29 am

চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশের সহযোগিতায় মালা খাতুন ফিরে পেয়েছে তার সুখের সংসার।

হাফিজুর রহমান :
চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার্স ইনচার্জ আবু জিহাদ ফখরুল আলম খান এর তত্ত্বাবধানে ও নারী শিশু বৃদ্ধ ও প্রতিবন্ধী হেল্প ডেক্স এর এসআই শাহনাজ এবং এএসআই আশরাফ এর সার্বিক সহযোগিতায় মালা খাতুন ফিরে পেয়েছে তার সুখের সংসার।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশ জানান, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা ভান্ডারদহ গ্রামের মোছাঃ মালা খাতুন (৪৫) গত ২৩/০৫/২১ খ্রিষ্টাব্দ থানায় অভিযোগ করেন যে তার স্বামী মোঃ ওহাব(৫২) তাকে শারীরিক এবং মানসিক নির্যাতন করছে। তাদের দাম্পত্য জীবনে একটি নয় বছরের কন্যা সন্তান আছে । মোছাঃ মালা খাতুন সিদ্ধান্ত নেয় যে সে তাকে তালাক দিয়ে দিবে।

তারই প্রেক্ষিতে বাদী মোছাঃ মালা খাতুন থানায় অভিযোগ দিয়ে তার স্বামীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের আবেদন জানান।

অভিযোগটি প্রাপ্তির পর নারী শিশু বৃদ্ধ ও প্রতিবন্ধী হেল্প ডেস্ক এর ইনচার্জ এসআই শাহনাজ ও সহযোগী এএসআই আশরাফ কে বিষয়টা নিয়ে ব্যক্তিগত বৈঠকের মাধ্যমে মীমাংসা করার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যায়। ঘটনার সার্বিক বিষয় জেনে দুই পরিবারের সদস্য ও স্বামী স্ত্রী সহ গতকাল রবিবার থানায় ডাকে চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশ।

তাদের দাম্পত্য কলহের জেরে একটি শিশু সন্তান ভুক্তভোগী হবে। শিশুটি বাবা মায়ের স্নেহ বঞ্চিত হবে এবং শিশুটির ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে পরিবারটির এ সকল মানবিক দিক বিবেচনায় পুলিশের পেশাদারিত্বের বাইরে যেয়ে উভয় পক্ষের শুনানি এবং চুয়াডাঙ্গা থানা পুলিশের পক্ষ থেকে জীবনধর্মী পরামর্শে একপর্যায়ে স্বামী-স্ত্রী পুনরায় প্রায় ভেঙে যাওয়া ঘর সংসার জোড়া লাগানোর পক্ষে পুনরায় মতামত দেন।

খুব অল্প সময়ের মধ্যে তাদের মধ্যে বোধগম্যতা ও শুভ বুদ্ধির সমন্বয় ঘটে। চুয়াডাঙ্গা থানা পুলিশের এই কর্মকাণ্ড কে একটি সুন্দর সমাজ ব্যবস্থা গড়ে তুলবার জন্য খুব ইতিবাচক কর্মকাণ্ড হিসেবে দুই পরিবারের লোকজন সহ উপস্থিত সকলে চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশের এই ধরনের কার্যক্রম কে সাধুবাদ জানান।

Please Share This Post in Your Social Media

error: Content is protected !!