January 29, 2022, 7:25 am

জামালপুরে ডিজিটাল সেন্টারের নারী উদ্যোক্তাকে লাঞ্ছিত এবং হত্যা মামলার বাদীকে প্রাণনাশের হুমকী প্রদানের অভিযোগ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে

জামালপুর প্রতিনিধিঃ
জামালপুর সদরের নরুন্দী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান আলী সরকারের অনিয়ম দুর্নীতির প্রতিবাদ করায় ওই ইউনিয়নের ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা নাজমা খাতুনকে লাঞ্ছিত করে পরিষদ থেকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। আজ দুপুরে জামালপুর প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন জেলার শ্রেষ্ঠ ডিজিটাল উদ্যোক্তা নাজমা খাতুন।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি অভিযোগ করেন, নরুন্দী ইউনিয়ন পরিষদের ডিজিটাল সেন্টারে নারী উদ্যোক্তা হিসাবে তিনি ২০১০ সাল থেকে কাজ করছেন। বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধী ভাতার কার্ড বিতরণে চেয়ারম্যানের অনিয়ম-দুর্নীতির প্রতিবাদ করায় চলতি বছরের ১ জুলাই তাকে পরিষদ থেকে লাঞ্ছিত করে বের করে দেন। এরপর থেকে তিনি নিজ বাড়িতে বসে সাধারণ মানুষের সেবা করে আসছেন। ঘটনাটি তিনি জেলা প্রশাসনসহ সরকারের বিভিন্ন মহলে জানালে চেয়ারম্যান তাকে নানাভাবে হুমকী দিচ্ছেন। তিনি ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান আলী সরকারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

একই সংবাদ সম্মেলনে নরুন্দির মোয়াল্লেম আব্দুল হক হত্যা মামলার বাদী মরিয়ম আক্তার অভিযোগ করেন, তার স্বামীকে হত্যা মামলার প্রধান আসামী ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান আলী সরকারের বিরুদ্ধে সিআইডি চার্জশীট প্রদান করেছেন। জামিনে থাকা এই চেয়ারম্যান মামলা প্রত্যাহারের জন্য তাকে প্রাণনাশের হুমকী দিচ্ছেন। বর্তমানে তিনি পরিবার নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন। তাকে চেয়ারম্যানের পদ থেকে বহিস্কার এবং জামিন বাতিলের দাবি জানান মরিয়ম আক্তার।

জামালপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদা ইয়াছমিন জানান, উদ্যোক্তা নাজমা খাতুন এ ঘটনার পর জেলা প্রশাসক ও উপজেলা চেয়ারম্যানের সাথে দেখা করেছেন। তাকে টেলিফোনে জানিয়েছেন। লিখিত অভিযোগ করার পর উপজেলা প্রশাসন ৩ সদস্যর একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। ইউনিয়ন পরিষদ চাইলে উদ্যোক্তা পরিবর্তন করতে পারেন।

নরুন্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান আলী সরকার বলেন, উদ্যোক্তা নাজমা খাতুনের বিরুদ্ধে ব্যাপক অভিযোগ রয়েছে। তাকে অনেকবার সতর্ক করা হয়েছে। ফলে ইউনিয়ন পরিষদ রেজুলেশন করে তাকে বের করে দেওয়া হয়েছে

Please Share This Post in Your Social Media

error: Content is protected !!