January 16, 2022, 6:46 pm

News Headline :
১হাজার শীতার্তদের মাঝে মোতাহার হোসেন এমপি’র শীতবস্ত্র বিতরণ ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে সেনা সদস্য নিহত মতলব উত্তরে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন মতলব উত্তরে মুক্তিযোদ্ধা মেমোরিয়াল হাসপাতাল এর উদ্বোধন আজ বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট বিনয় ভূষন মজুমদারের শুভ জন্মদিন। হাইমচর উপজেলা পরিষদের সেবা নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে থাকবো …… চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটওয়ারী নারায়ণগঞ্জ সিটিতে উৎসবমুখর ভোট, ফলের অপেক্ষা করোনার দৈনিক শনাক্ত ৫ হাজার ছাড়াল নির্বাচন কমিশন গঠন বিষয়ক মহামান্য রাষ্ট্রপতি বরাবর এনডিএম-এর প্রস্তাবনা বিদ্যালয়ের পাশে খড়ি দিয়ে চলছে অনুমতি বিহীন অবৈধ ইট ভাটা, ঘুমিয়ে রয়েছেন পরিবেশ অধিদপ্তর ও প্রশাসন সমাজ পরিবর্তনের অনেক বার্তা পেয়েছি এই কবিতার মাধ্যমে – আসাদুজ্জামান নুর এমপি

দক্ষিণখানে ধর্ষণ মামলার বাদির আত্মহত্যা

উত্তরা প্রতিনিধি: রাজধানীর দক্ষিণখান ফায়দাবাদে ধর্ষণ মামলার বাদি গলায়
ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে।
শুক্রবার (২৩অক্টোবর) রাত আনুমানিক ৭টার দিকে ফ্যানের সাথে ওড়না
পেচিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে ফাতেমা আক্তার (২৬)নামের এক গৃহবধু আত্মহত্যা করেছে এমনটি জানান স্বামী সোহেল শেখ। চলতি মাসের (৪অক্টোবর) ফাতেমা নিজে
বাদি হয়ে দক্ষিণখান থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।
মামলার এজাহারে আলী আহমেদ, রানা, আলমগীরসহ চার চারজনকে আসামী করা হয়। বাদির স্বামী আরো জানান, মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা সাব ইন্সপেক্টর প্রদীপ স্বাক্ষির জন্য চাপ দিচ্ছিল। ফোন দিলে খালি কইতো স্বাক্ষি নিয়ে অসো না কেন।
তুমি স্বাক্ষি ছাড়া কি করবা। সে টাকা খাইয়া খালি এগুলো কইতো।
এমনকি নোটিশও পাঠাইছে। এই প্রদিপ সারের জন্য আমার
সর্বনাশ হলো। তিনি আরো জানান, ফাতেমা খালি বলতো
আমি বিচার পাবো না। স্বাক্ষি দিতে না পারলে বিচার পাবো না আসামীরা ছাড়া পেয়ে যাবে।
বাসার গৃহকর্তা (সোহেল শেখ এর ছোট ভাই) তিয়ান শেখ জানান, আমি বাহিরে চা এর দোকানে চা খাচ্ছিলাম। অমার বড় ভাই আমাকে ফোন দিয়ে বলছে আমার সর্বনাশ হয়ে গেছে তোর ভাবি আর নেই। সাথে সাথে আমি বাসায় আসি। আমার ভাই আমার
বাসায় এসে আশ্রয় নিয়েছে। ভাবি একটা মামলার বাদি
যে কারনে আগের বাড়িওয়ালা তাদের নামিয়ে দিয়েছে, কারন
বাড়িওয়ালা নিজেই আসামি।
আত্মহত্যা মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা সাব ইন্সপেক্টর জয়নাল জানান, ছুরত হাল শেষে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট আসলে বোঝা যাবে।
ধর্ষন মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা জানান, তদন্ত চলছে আমি ছুটিতে আছি। আপনি থানায় যোগাযোগ করেন। আসামি দুজন এখনো গ্রেফতার করা হয়নি বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন করলে তিনি জানান, মামলার তদন্ত চলছে।
দক্ষিণখান থানার অফিসার ইনচার্জ শিকদার মো.শামিম
হোসেনের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায় নি।
উপপুলিশ কমিশনার মো.শহিদুল ইসলাম জানান, আত্মহত্যা তবে প্রচনা আছে। আমরা স্বামিকে আসামী করে মামলা নিয়েছি। তার স্বামি তাকে আত্মহত্যা করতে প্ররোচিত করেছে। তার গায়ে নির্যাতনের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

Please Share This Post in Your Social Media

error: Content is protected !!