December 8, 2021, 4:22 am

ফরিদগঞ্জে সন্ত্রাসী কায়দায় ১২টি মোটর সাইকেল যোগে এক প্রবাসীর বাড়িতে হানা ! জনতার ধাওয়া খেয়ে ফেলে রেখে যাওয়া ৪টি মোটর সাইকেল সহ ১জন আটক

বিশেষ প্রতিনিধি ঃ
চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে এক প্রবাসীর বাড়িতে ১২টি মোটর সাইকেলে একদল যুবক সন্ত্রাসী কায়দায় হানা দিয়েছে । এ খবর পেয়ে স্থানীয় জনতা ডাকাত ডাকাত চিৎকার দিয়ে তাদের ধাওয়া করে সুজন (৪০) নামের এক ব্যক্তিকে আটক করে। এ খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ৪টি মোটর সাইকেল সহ মূল অভিযুক্ত সুজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল মঙ্গলবার সন্ধায় উপজেলার ১১ নং চরদুখিয়া ইউনিনে।
তবে জোড়ালো তদবিরের জোরে গত মঙ্গলবার গভীর রাতে থানায় দুই পক্ষেরই সমজোতার ভিত্তিতে মুচলেকা আদায় করে সুজনকে ছেড়ে দেয় বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।
এলাকাবাসি ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে পাশবর্তী রাযপুর উপজেলার কেরোয়া গ্রামের সুজন খাঁনের নের্তৃত্বে ১২টি মোটর সাইকেলে একদল যুবক সৌদি প্রবাসী জাফর হাওলাদারের বাড়িতে হানা দেয়। এ অবস্থা দেখে বাড়ির লোকজন ডাকাত ডাকাত চিৎকার দিলে স্থানীয়রা ধাওয়া দিয়ে সুজন খাঁনকে আটক করে । অপরদিকে সুজনরে সাথে আসা যুবকরা এলাকাবাসির ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে যায় । এ সময় ২ টি ইয়ামাহা এফ জেট, ১ টি সুজুকি জিক্সার ও ১টি টিভিএস কোম্পানির এফাসি সহ মোট ৪ টি মটরসাইকেল রেখে পালিয়ে যায় যায় ওই যুবকেরা।
এসময় ওই বাড়িতে কোন পুরুষ সদস্য না থাকায় সুজন খাঁন তার তার সংগীরা জাফর হাওলাদারের স্ত্রী লিজা বেগমকে মারধর করে দেশীয় অ¯্র ঠেকিয়ে তার হাতে থাকা স্বর্নারংকার লুৃট করে বলে থানায় দায়ের করা অভিযোগে উল্লেখ রয়েছে।

ভুক্ত ভোগিরা জানায়, আমরা ৯৯৯ এ ফোন করলে ফরিদগঞ্জ থানার ওসির নির্দেশে এস আই আবদুর রাজ্জাক সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে এসে জনতার হাতে আটক আটকৃত সুজন খাঁন সহ ৪টি মটর সাইকেল উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।
এ ব্যাপারে প্রবাসী জাফর হাওলাদারের স্ত্রী লিজা বেগম বলেন, সন্ধ্যায় বাড়িতে আমি একা ছিলাম সে সময় হটাৎ ২৫/৩০ জনের অজ্ঞাত সন্ত্রাসবাহিনী আমাদের বাড়িতে হামলা করে । আমার গলায় অস্ত্র ধরে আমার হাতে থাকা ৬টি সোনার বালা ও গলায় থাকা একটি ২ ভরি ওজনের সোনার চেইন জাহার ওজন প্রায় ১১ ভরি স্বর্নালঙ্কার নিয়ে যায়।
তবে সুজনের পক্ষীয় লোকজন জানায়, হানিফ হোসেনের ছেলে সুজন সৌদিতে থাকা অবস্থায় জাফর হাওলাদারের কাছে টাকা পাওনা ছিল। বিদেশে থাকা অবস্থায় সুজন তার প্রাপ্য টাকা না পেয়ে দেশে এসে ক্ষিপ্তি হয়ে সুজন সন্ত্রাসী কায়দায় জাফর হাওলাদারের বাড়িতে হানা দেয়ার বিষয়টি কেউই সহজ ভাবে মেনে নেয়নি বলে স্থানীয় জনতা ডাকাত ডাকাত বলে চিৎকার চেঁচামেচি করে তাদেরকে ধাওয়া করতে বাধ্য হয়েছে।
এ নিয়ে জাফর হাওলাদারের স্ত্রাী তানজিয়া আক্তার লিজা বাদী হয়ে সুজনকে প্রধান আসামী করে ৭ জনের বিরুদ্ধে ফরিদগঞ্জ থানা একটি অভিযোগ দিয়েছে।
ফরিদগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদ হোসেন জানান, সুজনের সাথে জাফর হাওলাদারের টাকা পাওনা নিয়ে দ্বন্ধ রয়েছে। এরা দুজনেই আবার একে অপরের আত্বীয় বটে। গ্রামবাসী কর্তৃক আটক সুজনকে থানায় আনার পর দুই পক্ষই তাদের ভুল স্বীকার করে থানায় মুচলেকা দেয়ায় সুজনকে ছাড়া হয়েছে। তবে উদ্ধার হওয়া মোটর সাইকেলের কাগজ পত্র যাছাই বাছাই করে পরে সেগুলো দেয়া হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

error: Content is protected !!