June 24, 2021, 6:28 am

News Headline :
জামালপুর পৌরসভার শহর সমন্বয় কমিটির প্রাক- বাজেট আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় তাহিরপুরে শিক্ষা অফিসে ঘুষের টাকা না দেওয়ায় শিক্ষক প্রাণনাশের হুমকি রোটারি ক্লাব অব পার্ল কর্তৃক করোনায় কাজ হারানো ব্যক্তিদের মাঝে সাইকেল, সেলাই মেশিন ও কাপড় প্রদান কবি আলী আক্কাস তালুকদারের বাবার মৃত্যুতে বিভিন্ন মহলের শোক আজ সন্ধ্যার পর দেখা যাবে স্ট্রবেরি মুন নরসিংদীতে ২৪ ঘন্টায় আরও ১১ জনের করোনা শনাক্ত রাউজানে চুরি হওয়া অটোরিক্সা উদ্ধারঃ চোর চক্রের দুই সদস্য গ্রেপ্তার দেশে বাড়তে পারে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি কচুয়া-বরুড়া থানার সীমান্তবর্তী অপরাধ সভা কচুয়ায় আওয়ামী লীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

ফেসবুক লাইভে এসে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা, স্বামী আটক

ফেনীতে ফেসবুক লাইভে এসে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা করেছেন স্বামী। এ ঘটনায় নিহত গৃহবধূর স্বামী ওবায়দুল হক টুটুলকে (৩২) আটক করেছে পুলিশ। বুধবার (১৫ এপ্রিল) দুপুরে ফেনী পৌরসভার উত্তর বারাহীপুর ভূঁইয়া বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, পাঁচ বছর আগে কুমিল্লার গুণবতী এলাকার আকদিয়া গ্রামের সাহাব উদ্দিনের মেয়ে তাহমিনা আক্তারের সঙ্গে ওবায়দুল হক টুটুলের প্রেমের সম্পর্কে বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের পর থেকে আর্থিক অসচ্ছলতা নিয়ে তাদের পরিবারের মাঝে প্রায় সময় ঝগড়া হয়ে আসছিল। এরই মধ্যে স্বামী টুটুল মেয়ের পরিবারের কাছ থেকে বেশ কিছু টাকাও নেয়। কিন্তু আরও টাকা চাইলে তারা অস্বীকৃতি জানায়। এক পর্যায় বুধবার দুপুরে ফেসবুক লাইভে এসে স্বামী টুটুল তার স্ত্রীকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেন। পরে হত্যাকারী টুটুল নিজেই পুলিশকে মোবাইল ফোনে খবর দিলে পুলিশ এসে ঘটনাস্থল থেকে তাকে আটক করে। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত দা ও ফেসবুকে প্রচার চালানো মোবাইল জব্দ করা হয়।

তবে ছেলের পরিবারের দাবি, তাহমিনা আক্তারের সঙ্গে অবৈধ সম্পর্ক থাকায় টুটুল উত্তেজিত হয়ে তার স্ত্রীকে হত্যা করেন। টুটুলের মা লুৎফর নাহার জানান, ছেলের বউয়ের অন্য যায়গায় পরকিয়া প্রেমের সম্পর্ক ছিল।

ওবায়দুল হক টুটুল ঢাকার একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। তিনি ওই এলাকার গোলাম মাওলা ভূঁইয়ার ছেলে। তাদের ঘরে দেড় বছরের একটি মেয়ে সন্তান রয়েছে।

টুটুল লাইভে এসে বলেন, ‘প্রিয় দেশবাসী, আমাকে ক্ষমা করে দেবেন। আজকে আমার কারণে আমার পরিবার ধ্বংস। যার কারণে ধ্বংস আজকে তাকে আমি এ মুহূর্তে ধ্বংস করে দিলাম। আমি চেষ্টা করেছি। অনেক চেষ্টা করছি। পারিনি।’

তিনি বলেন, ‘আল্লাহর ওয়াস্তে সবাই আমাকে মাফ করে দেবেন। আমার এতিম মেয়েটার খেয়াল রাখবেন। আমার ভাই-বোনের খেয়াল রাখবেন। আমার পরিবার ভাইবোনের কোনো দোষ নেই। অন্য কেউ এটাতে সম্পৃক্ত নয়। আমি সম্পূর্ণ দায়ী আমার আজকের এ ঘটনার জন্য। প্লিজ সবার কাছে আমার একটাই অনুরোধ আমার ভিডিওটা ভাইরাল করেন।’

স্থানীয় এলাকাবাসী মো. জাকির আহম্মদ, আলা উদ্দিন, মো. মোমিন বলেন, এ ধরনের ঘটনা এই প্রথম দেখেছি। আর কেউ যেন আর এ ধরনের ঘটনা করতে না পারে সে জন্য তাকে সর্বোচ্চ শাস্তি দেয়ার দাবি জানান। পারিবারিক কলহের জন্য এ ঘটনা হয়েছে বলে তারা জানান।

ফেনী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আলমগীর হোসেন জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ইত্তেফাক/

Please Share This Post in Your Social Media

error: Content is protected !!