December 9, 2021, 10:48 am

News Headline :
আবারো অধিকার আদায়ে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল ডিপ্লোমা প্রকৌশলী সমিতি নাটোরের বাগাতিপাড়ায় আন্তর্জাতিক দূর্নীতি বিরোধী দিবসে মানববন্ধন ও আলোচনা সভা। শেরপুরে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বেগম রোকেয়া দিবস উদযাপন উপলক্ষে জয়িতাদের সংবর্ধনা হাতিয়ায় আন্তর্জাতিক দূর্নীতিবিরোধী দিবস ২০২১ পালিত টাঙ্গাইলের মধুপুরে বেগম রোকেয়া দিবস উদযাপন ফুলবাড়ী উপজেলা সমন্বয় কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত। ফুলবাড়ীতে ভিটামিন এ’প্লাস ক্যাম্পেইন অবহিত করন সভা। আবারও নির্বাচিত হয়ে অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে চান মজিবুল আলম সাদাত সোনারগাঁয়ে বিলুপ্তির পথে বেত ও বেত ফল নকলা মুক্ত দিবসের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ও অলোচনা সভা

মাগুরার মহম্মদপুরে স্বামীর স্বীকৃতির দাবিতে কলেজ পড়ুয়া গৃহবধূর অনশন

মোঃ তরিকুল ইসলাম,
মাগুরা প্রতিনিধিঃ

মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার স্ত্রীর অধিকার পেতে সেতুপর্না রানী (২৪) তার স্বামীর বাড়ীতে অনশনে করছেন।

বৃস্পতিবার (২৭ মে) দুপুর থেকেই উপজেলার বাবুখালী ইউনিয়নের পাড়ুয়ারকুল এলাকার স্কুল শিক্ষক রাম প্রসাদ গোলদারের ছেলে চন্দ্র শেখর গোলদারের বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

তবে ওই তরুণীর উপস্থিতি টের পেয়ে বাড়ি থেকে পালিয়েছেন চন্দ্র শেখর গোলদার। অনশনে বসা ওই নারী সেতুপর্না রানী মাগুরার শ্রীপুর উপজেলার হোগলডাঙ্গা গ্রামে সুদেব মন্ডলের মেয়ে।

পাঁচ বছর সম্পর্কের জের ধরে স্বামী-স্ত্রীর পরিচয় দিয়ে ফরিদপুরে বাসা ভাড়া করে একসাথে বসবাস করতেন সেতুপর্না রানী ও চন্দ্র শেখর গোলদার নামে ওই যুবক । ঘটনা জানাজানি হলে চাচা লক্ষন গোলদারের উপস্থিতিতে হিন্দু শাস্ত্রমতে তাদের বিবাহ সম্পন্ন হয়। ভাড়া বাসা ফরিদপুরে বেশ ভালই কাটছিল তাদের স্বামী-স্ত্রীর সাংসারিক জীবন।

অনশনের সংবাদ সংগ্রহে গেলে, গত ২৮ এপ্রিল মাগুরা নোটারী পাবলিক বিবাহ বন্ধন ছিন্ন করা ঘোষনা দিয়ে চন্দ্র শেখর স্বাক্ষরিত দালিল বের করেন স্কুল শিক্ষক বাবা রাম প্রসাদ গোলদার। তিনি তার পূত্রবধুকে স্বিকৃতি না দেওয়া বিষয়ে বলেন, রাতে ওই মেয়ে আমার পাশের বাড়িতে ছিল। তবে ওই মেয়ের আগে বিয়ে হয়েছিল। শ্রীপুর উপজেলার সোনাইকুন্ডি গ্রামের মনিকুমার সরকারের সাথে তার গোপনে বিয়ে হয়। এই মেয়েকে কিভাবে মেনে নিবো।

অনশনে বসা সেতুপর্না রানী বলেন, স্বামী চন্দ্র শেখরের পছন্দমত সম্পর্ক করে বিয়ে করলেও তার বাবা কোনমতেই আমাকে পুত্রবধু হিসেবে স্বিকৃতি দিতে রাজি নয়। উল্টো আমার নামে বদনাম করেছেন। নিরুপায় হয়ে স্বামীর কথামত কিছুদিন আগে ছেলের বাড়িতে আসলে তাকে গলা ধাক্কা দিয়ে তাড়িয়ে দেন বাড়ির লোকজন। গত (২৭ মে) বৃহষ্পতিবার সকালে বিয়ের কাগজপত্র হাতে নিয়ে স্বামী স্বীকৃতির দাবিতে স্বামীর বাড়িতে অনশনে বসেছেন তিনি। স্বামীর সাথে আমাকে কোন যোগাযোগ করতে দিচ্ছেনা তার পরিবার। আমি ঘর সংসার করতে চাই তবে আমার শশুর আমাদের পথের কাটা হয়ে দাড়িয়েছে। যেহেতু আমার স্বামী লেখাপড়া করে এবং খরচ দেয় তাই আমার শশুর জোরপূর্বক আমার আর স্বামীর মাঝে কোন কথোপকথন বা যোগাযোগ করতে দিচ্ছেনা। নাম্বার পরিবর্তন করে দিয়েছে।

ছেলেটির বাবা এলাকায় প্রভাবশালী হওয়ায় মেয়েটিকে কোনভাবেই পূত্রবধু হিসেবে মেনে নিতে রাজি নয় বলে জানান স্থানীয়রা।

বাবুখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মীর মো. সাজ্জাদ আলী বলেন, এমন একটা ঘটনার বিষয় শুনেছি। বিস্তারিত জানার পর সামাজিকভাবে কি করা যায় কিনা দেখবো।

ছেলেটির মা শেফালী গোলদার বলেন, ওই মেয়েকে কোনভাবেই পুত্রবধু হিসেবে মেনে নিবনা। তার জন্য যা করতে হয় আমরা করবো।

চন্দ্র শেখর গোলদারের মুঠোফোন বন্ধ পাওয়ায় তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তার বাবা সচল মোবাইল নাম্বর দিতেও রাজি হননি।

মহম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তারক বিশ্বাস বলেন, বিষয়টি শুনেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ঘটনা বিস্তারিত জেনে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

error: Content is protected !!