মুজিববর্ষে “বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না-চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান

নিউজ ডেস্ক -চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান বলেছেন, আগামী এক বছরের মধ্যে চাঁদপুরে কেউ গৃহহীন থাকবে না। মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে পুনর্বাসনের নির্দেশনা বাস্তবায়ণে চাঁদপুর জেলা প্রশাসন নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) বিকেল ৪টায় চাঁদপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সম্মেলন কক্ষে মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার জমিসহ একক গৃহ হস্তান্তর বিষয়ে প্রেস ব্রিফিং কালে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রেস ব্রিফিং কালে চাঁদপুর জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান বলেন, মুজিববর্ষে “বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না” মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে দেশের সকল ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান চলমান রয়েছে। মুজিববর্ষে উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রমের ৩য় পর্যায়ের (২য় ধাপ) শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠান উপলক্ষে চাঁদপুর জেলার ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিক বৃন্দের সাথে আজ প্রেস বিফ্রিং ও মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, আগামি ২১ জুলাই ২০২২ তারিখে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশের ৩য় পর্যায়ের ২য় ধাপে প্রায় ২৬,৩৯০ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমিসহ গৃহ প্রদান কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করবেন। ১ম পর্যায়ে প্রায় ৬৬,১৮৯ জনকে, ২য় পর্যায়ে প্রায় ৫৩,৩৪০ জনকে ও ৩য় পর্যায়ের ১ম ধাপে প্রায় ৩৩,০০০ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমিসহ গৃহ প্রদান করা হয়েছে।

এসময় তিনি আরো বলেন, চাঁদপুর জেলায় “ক’ শ্রেণির গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবার এর সংখ্যা ১৬০৬ টি। ১ম পর্যায়ে গৃহের মাধ্যমে ১৩৫টি পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়েছে। ২য় পর্যায়ে এ জেলায় একক গৃহের মাধ্যমে ১০৯টি পরিবারকে অর্থাৎ ২টি পর্যায়ে সর্বমোট ২৪৪টি পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়েছে। ৩য় পর্যায়ে ২২৩টি একক গৃহ প্রদানের বরাদ্দ পাওয়া গেছে। তন্মধ্যে আশ্রয়ন প্রকল্পের আওতায় ৩য় পর্যায়ের ১ম ধাপে একক গৃহের মাধ্যমে ৫১টি, আশ্রয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে ৬২৯টি অর্থাৎ মোট ৬৮০টি পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়েছে। বাকি ৭২টি গৃহের মধ্যে আগামী ২১জুলাই ২০২২ তারিখে ৩য় পর্যায়ের ২য় ধাপে ৬৫টি পরিবারকে [যথাক্রমে হাজীগঞ্জে ২৯টি, শাহরাস্তিতে ২১টি, ও মতলব দক্ষিণে ১৫টি ] এবং অবশিষ্ট ৭টি পরিবারকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে গৃহ হস্তান্তর করা হবে।

চাঁদপুর জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান বলেন, ৭টি গৃহ নির্মানের জন্য খাস জমিতে মাটি ভরাট করা হয়েছে। ভালোবাসে মাটির কম্প্যাকশন না হওয়ায় কাজ শুরু করা হয়নি। এসকল পরিবারকে এক টাকা সেলামীতে দুই শতক জমি বন্দোবন্ত প্রদান করা হয়েছে। উক্ত ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মধ্যে কবুলিয়ত রেজিস্ট্রেশন, নামজারী ও খতিয়ান প্রদান বাবদ ১১৭০ টাকা প্রদান করা হয়েছে। এতে নাম জারীর জন্যও তাদের কোন টাকা ব্যয় করতে হয়না। প্রতিটি একক গৃহের আয়তন ৩৯৫ বর্গফুট। দুই কক্ষ বিশিষ্ট সেমিপাকা গৃহে একটি টয়লেট, একটি রান্নার কক্ষ ও একটি ইউটিলিটি স্পেস রয়েছে।

জেলা প্রশাসক বলেন, মূলত চাঁদপুর জেলার খাস জমি উদ্ধার করে এই পুনর্বাসন করা হচ্ছে। নিস্কন্টক খাস জমি না পাওয়া গেলে অবশিষ্ট “ক’ শ্রেণির পরিবরকে জমি ক্রয়ের মাধ্যমে পুনর্বাসনের জন্য সময়বদ্ধ পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। পুনর্বাসনের বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারদেরকে জায়গা নির্বাচন, মাটি ভরাটসহ প্রস্তুতি গ্রহনের জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এ পর্যায়ে হাজীগঞ্জে ১৪টি ও শাহরাস্তিতে ২১টি অর্থাৎ মোট ৩৫টি পরিবারকে জমি ক্রয়ের মাধ্যমে এবং খাস জমিতে হাজীগঞ্জে ১৫টি ও মতলব দক্ষিণে ১৫টি অর্থাৎ ৩০টি পরিবারকে পুনর্বাসন করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, চাঁদপুর জেলায় ১৬০৬টি ভূমিহীন পরিবারের মধ্যে ৭৫৫টি পরিবারকে আশ্রয়ণ প্রকল্পে এবং আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের মাধ্যমে ১ম, ২য়, ও ৩য় পর্যায়ে ৩৬৭টি পরিবারকে ইতোমধ্যে পুনর্বাসন করা হয়েছে। অবশিষ্ট ভূমহীন ৪৮৪টি পরিবারের মধ্যে ১৭৯টি পরিবারকে জমি ক্রয়ের মাধ্যমে পুনর্বাসন করা হবে।

চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) ও দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক সোহেল রুশদীর পরিচালনায় প্রেস ব্রিফিংয়ে আরো বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক চাঁদপুর বার্তার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক শহীদ পাটোয়ারী, সাবেক সভাপতি ও দৈনিক চাঁদপুর প্রতিদিনের সম্পাদক ও প্রকাশক ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সেক্রেটারী (ভারপ্রাপ্ত)ও চ্যানেল ২৪ এর চাঁদপুর জেলা প্রতিনিধি আল-ইমরান শোভন, দৈনিক সংবাদের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক আব্দুর রহমান, দৈনিক একাত্তর কণ্ঠের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক জিয়াউর রহমান বেলাল, চাঁদপুর জেলা ফটোজার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন এর সভাপতি এম এ লতিফ, সাধারণ সম্পাদক কে এম মাসুদ, এখন টিভির চাঁদপুর জেলা প্রতিনিধি তালহা জুবায়ের, দৈনিক সংবাদ পত্রিকার চাঁদপুর জেলা প্রতিনিধি অমরেশ দত্ত জয়।

প্রেস ব্রিফিংকালে চাঁদপুর প্রেসক্লারেব সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) ও দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক সোহেল রুশদী তার বক্তব্যে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর গৃহহীনদের ভূমি ও গৃহ প্রদান একটি সুদৃঢ় প্রসারী উদ্যোগ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এ উদ্যোগের জন্য দেশে গৃহহীন পরিবারের সংখ্যা হ্রাস পাবে। আশা রাখি দেশে কোন ভূমিহীন থাকবে না।তিনি বলেন, প্রকৃত গৃহহীন ও ভুমিহীনরা যাতে ঘর পায় তা নিশ্চিত করতে হবে ।প্রয়োজনে জেলা প্রশাসন থেকে সার্ভে কওে বিষয়টি নিশ্চিত হতে হবে । তিনি বলেন,ভবিষতে চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে যে কোন গুরুত্বপুর্ন অনুষ্ঠান বা সংবাদ সম্মেলনে প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ, পত্রিকার সম্পাদকগণ ও সিনিয়র সাংবাদিকদের যেন ফোন করে আমন্ত্রন জানানো হয়। সেই অনুরোধ থাকবে ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) রাশেদা আক্তার ,সময় টিভির স্টাফ রিপোর্টার ফারুক আহমেদ,দৈনিক প্রিয় চাঁদপুরের সম্পাদক বোরহান উদ্দিন ডালিম, এস এ টিভির চাঁদপুর জেলা প্রতিনিধি নজরুল ইসলাম আতিক, দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার বার্তা সম্পাদক আহম্মদ উল্যাহ, দৈনিক চাঁদপুর বার্তার বিশেষ প্রতিনিধি শাহরয়িার পলাশ, মেঘনা বার্তার সম্পাদক আনোয়ারুল হক,দৈনিক চাঁদপুর দর্পণের সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার সুজন আহমেদ,দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার সিনিয়র স্টাফ রির্পোটার মো: রানা সরকারসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকগণ প্রমুখ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আজকের দিন-তারিখ
  • রবিবার (রাত ৮:৪৮)
  • ২৬শে মার্চ, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  • ৪ঠা রমজান, ১৪৪৪ হিজরি
  • ১২ই চৈত্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ (বসন্তকাল)
পুরানো সংবাদ
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১