মতলব উত্তরে শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা

 

 

নাঈম মিয়াজী :
চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলায় ভগবান শ্রী কৃষ্ণের জন্মাষ্টমী উদযাপন উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার সকালে উপজেলা পরিষদ চত্ত্বর থেকে শোভাযাত্রা বের হয়ে প্রধান প্রধান সড়কে প্রদক্ষিণ করে। পরে বটমূলে এসে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানের আয়োজন মতলব উত্তর জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদ।
এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশরাফুল হাসান। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ শাহজাহান কামাল।
মতলব উত্তর জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদের সভাপতি বিমল দাসের সভাপতিত্বে ও উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শ্যামল কুমার বাঢ়ৈ এর উপস্থাপনায় আরো বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শ্যামল চন্দ্র দাস, ইসকন এর আহ্বায়ক যুগল কৃষ্ণ রায়, সাবেক প্রধান শিক্ষক বাবু রাধেশ্যাম রায়, জাগো হিন্দু পরিষদের আহ্বায়ক প্রভাত চন্দ্র ভৌমিক, সাবেক ছাত্রনেতা বিষ্ণুপদ সরকার’সহ হিন্দু ধর্মলম্বী নেতৃবৃন্দ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইউএনও আশরাফুল হাসান বলেন, ধর্ম যার যার উৎসব সবার। সেই লক্ষ্যে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বন্ধনে থেকে উৎসব পালন করব। তিনি বলেন, ধর্মটা একটা আত্মশুদ্ধির ব্যাপার। সকল ধর্মেই দুষ্টের দমন ও সৃষ্টের লালনের কথা বলা হয়েছে। তাই ধর্মের নিয়ম নীতি অনুসরণ অনুকরণ করতে হবে। তাহলেই ধর্মের মাধ্যমে মানব জাতির কল্যাণ বয়ে আনা যাবে। জন্মাষ্টমী উদযাপন অনুষ্ঠানটি ছোট পরিসরে হওয়ায় তিনি দুঃখ প্রকাশ করেন। তবে আগামীতে আরো বড় পরিসরে করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন ইউএনও।

ছবি-০১
মতলব উত্তরে শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা।

মতলব উত্তরে লাল শাক চাষে লাভবান উদ্যোক্তা আতাউর রহমান

নাঈম মিয়াজী :
চাঁদপুরের মতলব উত্তরের ছেংগারচর পৌরসভার ওঠারচর গ্রামের তরুন উদ্যোক্তা মো. আতাউর রহমান সরকার। সফল উদ্যোক্তা হওয়ার সপ্ন দেখছে তিনি। তিনি চলতি মৌসুমে ৪৫ শতক জমিতে লাল শাক চাষ করেছেন। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় লাল শাক বিক্রি করে বেশ লাভবান হবেন বলে জানান আতাউর রহমান সরকার।
উপজেলা কৃষি দপ্তরের সূত্র মতে, মতলব উত্তর উপজেলায় কৃষি খাতে নিরব বিপ্লব ঘটেছে। এক সময় চাষিরা শুধু ধান চাষ করতো। কিন্তু এখন স্থানীয় অনেক কৃষকই আধুনিক পদ্ধতিতে নানা জাতের লাল শাক উৎপাদন করছে। আর সেখান থেকে বীজ উৎপাদন করে আয় করছে লাখ লাখ টাকা। লাভের মুখ দেখায় কৃষকদের মধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে এই লাল শাকের বীজ উৎপাদন।
জানা যায়, মতলব উত্তর উপজেলায় প্রায় ১৩০ হেক্টর জমিতে এ বছর উচ্চফলনশীল লাল শাকের আবাদ করা হয়েছে। পরে এসব শাক থেকে বীজ উৎপাদন করা হবে।
লাল শাক চাষি কৃষক ও তরুন উদ্যোক্তা মো. আতাউর রহমান সরকার বলেন, আমিও আগে আমার এই জমিতে ধান চাষ করতাম। কিন্তু এভাবে যে লাল শাকের বীজ উৎপাদন করে লাভবান হওয়া যায়, তা কখনো ভাবিনি। এলাকার অন্য কৃষকদের দেখে আমিও বীজ উৎপাদন শুরু করি। যদিও শুরুতে শুধুমাত্র ২৪ শতক জমিতে চাষ করেছিলাম, এখন ৪৫ শতক জমিতে চাষ করি। আমার খরচ হয়েছে ৫ থেকে ৭ হাজার টাকা। বিক্রির সম্ভাবনা রয়েছে ৫০ থেকে ৫২ হাজার টাকা। পাশাপাশি ধনিয়া, মুলা, ঢেঁড়স এবং ধান চাষ করেছি অন্য জমিতে। এই বীজ উৎপাদনে সুবিধা হচ্ছে এতে বেশি সময় লাগেনা। আবার পুঁজিও খুব কম। কিন্তু লাভ অনেক বেশি।
মতলব উত্তর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. সালাউদ্দিন বলেন, লাল শাক ও বীজ উৎপাদন বদলে দিয়েছে গ্রামীণ অর্থনীতির চিত্র। এসব গ্রামের কৃষকরা এখন লাল শাক ও বীজ উৎপাদনে অনেক বেশি অভিজ্ঞ। এছাড়া কৃষিকাজের ক্ষেত্রে তাদের যে ধরনের সহযোগিতার প্রয়োজন হয় তার সবটুকুই আমাদের কাছ থেকে পায়

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আজকের দিন-তারিখ
  • বুধবার (সকাল ৭:৩৯)
  • ৬ই ডিসেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  • ২২শে জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৫ হিজরি
  • ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ (হেমন্তকাল)
পুরানো সংবাদ
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১