মেঘনায় ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ পেয়ে উৎসবে জেলেরা

নিজস্ব প্রতিবেদক-টানা ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞার পর ভোলার মেঘনায় ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ ধরা পড়ছে। এতে হাসি ফুটেছে জেলেদের মুখে।

জেলে পাড়ায় ব্যস্ততা বেড়ে যাওয়ার পাশাপাশি সরগরম হয়ে উঠেছে মাছের আড়ৎ। ইলিশ ধরার উৎসবে মেতে উঠেছেন ভোলার জেলেরা। এবারে ইলিশ বিক্রির টাকায় বিগত দিনের ক্ষতি পুশিয়ে ঘুরে দাঁড়াতে পারবেন বলে আশা করছেন তারা।

ইলিশ ধরার নিশেধাজ্ঞা কাটিয়ে নদীতে নেমেই দেখা মিলেছে ইলিশের। নদীতে শত শত নৌকা ট্রলার নিয়ে জেলেরা নেমে পড়েন ইলিশ শিকারে। প্রথম দিনেই ভালো পরিমানে মাছ পাওয়ায় খুশি তারা।

জেলেরা বলেন আমরা রাতেই নদীতে গিয়েছি। যে পরিমান মাছ পেয়েছি তাতে ঘুরে দাড়াতে পারবো বলে আশা রাখছি। এভাবে মাছ পেলে ধার দেনাও পরিশোধ করে দিতে পারবো।

ভোলা সদরের তুলিতলী মাছ ঘাটের এক আড়ৎদার বলেন, নদীতে মোটামুটি ভালো ইলিশ পাওয়ায় যাচ্ছে। এতে জেলেরাও খুশি আর আমরা আড়ৎদাররাও খুশি। প্রথম দিন এ ঘাটে ৬০ লাখ টাকার মাছ কেনা-বেচা হয়েছে।

দ্বীপজেলা ভোলায় ইলিশ ধরার ওপর জীবিকা চলে এমন জেলের সংখ্যা তিন লাখেরও বেশি। তারা সবাই এখন ইলিশ ধরতে নদী-সাগরে ছুটছেন। এছাড়া ঘাটগুলোতে পাইকার, আড়ৎদার ও জেলেদের কর্মব্যস্ততায় সরগরম হয়ে উঠেছে। আড়ৎগুলোতে লাখ লাখ টাকার মাছ বিক্রি হচ্ছে। সেই মাছ চলে যাচ্ছে বাইরের জেলাগুলোতে।

এ বছর ইলিশের লমাত্রা অর্জিত হবে বলে মনে করছেন জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোল্লা এমদাদুল্লাহ। তিনি বলেন, ইলিশের অভিযান সফল হওয়ায় নদীতে ইলিশের উৎপাদন বেড়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আজকের দিন-তারিখ
  • শুক্রবার (বিকাল ৩:৪০)
  • ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • ১৩ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি
  • ১০ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ (বসন্তকাল)
পুরানো সংবাদ
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯