আত্মহত্যার আগে ডায়েরিতে যা লিখে যান গৃহবধূ

আত্মহত্যার আগে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের অনেক যন্ত্রণা আর অপবাদ লাঞ্ছনা সহ্য করতে না পেরে নিজের হাতে ডায়েরির পাতায় এমন কষ্টের কথাগুলো লিখে গেছেন গৃহবধূ রত্না।

রোববার রাতে ভোলার লালমোহনের চরভূতা ইউনিয়নের ৭ নাম্বার ওয়ার্ডের মাহাবুব চৌকিদার বাড়িতে মোবাইল ও স্বর্ণের চেইন চুরির অপবাদ সইতে না পেরে জান্নাতুল ফেরদৌস রত্না (২৫)বিষপান করে আত্মহত্যা করেন। গৃহবধূ রত্না ওই বাড়ির মো. লিটনের স্ত্রী। তিনি দুই সন্তানের মা।

রত্নার বাবা আবুল কাশেম জানান, তার মেয়ে স্বামী বাড়িতে সুখেই ছিল। জামাই লিটন তার আপন ভাগনে হয়। কিন্তু কিছুদিন আগে রত্নার চাচাশ্বশুর মো. হাফিজুর রহমান তার পরিবার নিয়ে ভারত থেকে ওই বাড়িতে বেড়াতে আসে। ভারতে তিনি বিয়ে করে ধর্মান্তরিত হয়ে সন্তোষ দে নামে বসবাস করেন। তিনি নিজেদের সঙ্গে থাকা স্বর্ণালংকার রত্নার কাছে জমা রাখেন। ওই ঘর থেকে একটি স্বর্ণের চেইন ও মোবাইল ফোন চুরি হয়। এই চুরির অপবাদ চাচাশ্বশুর রত্নার ওপর দেয়।

তিনি অভিযোগ করেন, তার মেয়েকে চুরির অপবাদ দিয়ে কয়েকদিন পর্যন্ত মানসিকভাবে অত্যাচার করে তার চাচাশ্বশুর ও বাড়ির অন্যান্য স্বজনরা। অপমান সহ্য করতে না পেরে রত্না ঘরে থাকা কীটনাশক পান করে।

মৃত্যুর আগে রত্না তার কষ্টের কথাগুলো লিখে গেছেন ডায়েরির নোটে। রত্না লেখেন, ‘বাবা আমার অনুরোধ আমার স্বামীকে বাদে বাকি কাউরে ছাড় দিবা না, ওরা সবাই মিথ্যাবাদী। আমার চাচাশ্বশুর ওরা সবাই নাটের গুরু। ওরা সবাই আমার নামে মিথ্যা অপবাদ রটাইছে। আমি কতটা বিশ্বাসী আর সৎ ছিলাম সেটা আমার আল্লাহ ছাড়া কেউ জানে না। একটা মানুষের জীবন ছাড়া প্রিয় আর কি হতে পারে! আমি আমার জীবনের বিনিময়ে বলছি আমি চুরি করি নাই। এখন তোরা খুশি, সবাই খুশিই থাক। আমি চলে গেলাম। কেউ আর তোদের সঙ্গে সত্যের প্রতিবাদ করবে না। আর বেশি কিছু লিখলাম না। অনেক কথা বলার ছিল সমাজকে, এই সমাজে ভালো মানুষের মূল্য নাই। সবার কাছে একটা অনুরোধ রইল আমার মেয়ে দুজনকে দেখিয়েন। ওদের জন্য আমার কতটা কষ্ট হয় বলে বোঝাতে পারবো না। মা ছাড়া কতটা অবহেলিত সন্তান সেটা যার মা নাই সে বুঝে। বাবা-মা পারলে ওদের খেয়াল নিও, না পারলে জোর নাই।’

স্বামী লিটন তার স্ত্রীকে যারা অপবাদ দিয়ে মেরেছে সেই চাচাদের বিচার চান। তিনি বলেন, আমার স্ত্রীকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে আমার চাচারা অনেক গালিগালাজ করেছে। তাকে আত্মহত্যা করতে বাধ্য করেছে।

লালমোহন থানার ওসি মো. মাহাবুবুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। রত্নার লাশ ময়নাতদন্ত করে আনা হয়েছে। প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 

যুগান্তর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আজকের দিন-তারিখ
  • রবিবার (দুপুর ২:০৪)
  • ১৪ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • ৫ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি
  • ১লা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ (গ্রীষ্মকাল)
পুরানো সংবাদ
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০