বঙ্গবন্ধু ও স্বাধীন বাংলাদেশ।

বঙ্গবন্ধু ও স্বাধীন বাংলাদেশ। পর্বঃ ৫৮ তারিখঃ ০৪-০৬ – ২০২১ইং পাকিস্তান আওয়ামী লীগের দায়িত্ব নিয়েই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছুটে আসেন লন্ডনে। বলা যায় এটাই তার প্রথম সাংগঠনিক সফর। যদিও তখনো ব্রিটেনে আওয়ামী লীগের কোনো দলীয় কার্যক্রম ছিল না। তবে ঐতিহাসিকভাবে এই সফরের গুরুত্ব অনেক। আগরতলাকে ব্যবহার করে গেরিলা যুদ্ধের পরিকল্পনাকে পাকাপোক্ত করতেই বঙ্গবন্ধুর সেই সফর ছিল। এই সফরেও তিনি আবদুল মান্নান ছানু মিয়ার আথিতেয়তা গ্রহণ করেন। ১৯৬৪ সালের এই সফরে বঙ্গবন্ধু ব্রিটেনের তৎকালীন বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের সঙ্গে দেখা করেন। এক পর্যায়ে তিনি লন্ডনে তার পুরনো রাজনৈতিক সহকর্মী লন্ডন প্রবাসী তাসাদ্দুক আহমদের সঙ্গে পূর্ববঙ্গের স্বাধীনতা সংগ্রাম সম্পর্কে এক গোপন বৈঠকে মিলিত হন। ২১ রমিলি স্ট্রিট, লন্ডন ডব্লিউওয়ান-এর তৎকালীন বাঙালি নেতৃত্বাধীন পাকিস্তান ক্যাটারার্স এসোসিয়েশনের অফিসে সেই একান্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। বঙ্গবন্ধুর সেই সফর কতদিনের ছিল সে সম্পর্কে তেমন ধারণা পাওয়া না গেলেও দেশে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা শুরু হওয়ায় সফর অর্ধ সমাপ্ত রেখে সংক্ষিপ্ত রেখে চলে যান দেশে। তবে তাসাদ্দুক আহমেদ ও শেখ মুজিবুর রহমানের সেই গোপন বৈঠক সম্পর্কে লেখক-সাংবাদিক আবদুল মতিন বলেন, শেখ সাহেব চলে যাওয়ার পর আমি তাসাদ্দুককে জিজ্ঞাসা করলাম, কী বললেন তিনি? তাসাদ্দুক বলল, ১৯৬০ সালে তিনি (বঙ্গবন্ধু) আমাকে (আবদুল মতিন) আগরতলা থেকে গেরিলা যুদ্ধ শুরু করার সম্ভাবনা সম্বন্ধে যে ইঙ্গিত দেন, তারই পুনরাবৃত্তি করেন। নিবেদনেঃ সরদার রাকিবুল ইসলাম (বনসাই) জান্নাতুল ফেরদৌস (অবধি) ★তথ্যসূত্র সংগৃহীত। বিঃদ্রঃউপরোল্লেখিত সকল তথ্য বিভিন্ন মিডিয়া হতে সংগৃহীত। কোন ধরণের অসংগতি পেলে দয়া করে জানাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আজকের দিন-তারিখ
  • বৃহস্পতিবার (সকাল ৮:৫৫)
  • ২৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • ১৯শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি
  • ১৬ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ (বসন্তকাল)
পুরানো সংবাদ
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯