May 24, 2022, 3:49 am

News Headline :
হজ ব্যবস্থাপনায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ৯ নির্দেশনা চট্টগ্রামে ওসি প্রদীপের স্ত্রী আত্মসমর্পণের পর কারাগারে ই-কমার্স ব্যবসায় প্রতারণা বন্ধে হাইকোর্টের একগুচ্ছ নির্দেশনা মুক্তিযোদ্ধা আবদুর রব এর ১৪তম মৃত্যুবার্ষিকীতে আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান চাঁদপুর জেলার  শ্রদ্ধার্ঘ্য অপর্ণ চাঁদপুর শহরের নতুন আলিমপাড়ায় প্রবাসীর বাসায়  দূর্ধ্বর্ষ চুরি! স্বর্নালংকার ও নগদ অর্থ লুট পিরোজপুরের নেছারবাদ উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত ১১ দিনের ব্যবধানে ফুলবাড়ীর দু’টি হত্যা মামলায় ৬ জনের ফাঁসি,৪ জনের যাবজ্জীবন পলাশে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় নারী মুক্তিযোদ্ধার দাফন সম্পন্ন পলাশে উন্নতজাতের গাভী লালন-পালন বিষয়ে প্রশিক্ষণ নীলকমল ইউপি চেয়ারম্যানের পরিবারের বিরুদ্ধে গৃহকর্মীকে মারধরের অভিযোগ মিথ্যা ও বানোয়াট।

চীনা সেনাবাহিনী ভারতে ঢুকে পরেছে

নিউজ ডেস্ক পূর্ব লাদাখে চীনা সেনাবাহিনী ঢুকে পড়ার কথা স্বীকার করেছেন ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। মঙ্গলবার সংবাদমাধ্যম সিএনএন-নিউজ ১৮ কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এমন স্বীকারোক্তি দেন তিনি।

তবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে দিল্লি যাবতীয় ব্যবস্থা নিচ্ছে বলেও জানিয়েছেন রাজনাথ। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে এদিন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও বিষয়টি নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলেছেন।

রাজনাথের দাবি, চীন ওই এলাকাকে নিজেদের দাবি করলেও প্রকৃতপক্ষে এটি ভারতীয় ভূখণ্ড।

ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী জানান, আগামী ৬ জুন চীন ও ভারতীয় বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তারা বিষয়টি নিয়ে মিলিত হবেন। তবে নিজের অবস্থান থেকে কোনোভাবেই পিছু হটবে না দিল্লি।

রাজনাথ বলেন, বেশকিছু চীনা নাগরিক ওই এলাকায় ঢুকে পড়েছে। ভারতের যা করা উচিত ছিল, তা-ই করেছে। সমস্যা সমাধানের জন্য চীনকে পরিস্থিতি গভীরভাবে বিবেচনার পরামর্শ দেন ভারতীয় মন্ত্রী।

প্রায় মাসখানেক ধরে পূর্ব লাদাখের পার্বত্য অঞ্চলে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর সংঘাতে লিপ্ত রয়েছে চীনা ও ভারতীয় বাহিনী। বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার সামরিক ও কূটনৈতিক স্তরে আলোচনা হলেও সমাধান মেলেনি।

২০১৭ সালে ডোকলামে ত্রিদেশীয় সীমান্তে এমন সংঘাতে জড়িয়ে পড়েছিল চীনা ও ভারতীয় বাহিনী। সেবার কূটনৈতিক ও সামরিক আলোচনার মাধ্যমে বিতর্কের অবসান ঘটেছিল। দিল্লির প্রত্যাশা এবারও সেই পথেই সংকট উত্তরণ ঘটতে পারে। এমন আশাবাদের কথা জানালেও একইসঙ্গে হুঁশিয়ারি দিতেও ভোলেননি ভারতীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

তার ভাষায়, ‘ভারত কোনও দেশের অহংকারে আঘাত করতে চায় না। আবার একইসঙ্গে নিজের অহংকার খর্ব করার কোনও প্রচেষ্টাকেও প্রশ্রয় দেয় না।

ইতোমধ্যে দুই দেশই পূর্ব লাদাখে অতিরিক্ত বাহিনী, সামরিক যান ও প্রচুর অস্ত্রসম্ভার পাঠিয়েছে। এর মধ্যেই গত ৫ মে সন্ধ্যায় প্রায় ২৫০ ভারতীয় ও চীনা সেনা সরাসরি সংঘাতে জড়িয়ে পড়লে পরিস্থিতি আরও জটিল হয়ে পড়ে। পরে গত ৯ মে উত্তর সিকিমেও একই রকম ঘটনা ঘটে।

সূত্র: নিউজ ১৮, হিন্দুস্তান টাইমস।

নিউজটি শেয়ার করুন


© All rights reserved © greenbanglanews.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD