May 25, 2022, 1:58 am

News Headline :
ময়মনসিংহে ব‍্যবসায়ী সমিতির উদ্যোগে পরিচ্ছন্ন হলো চুড়খাই বাজার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে ফরিদগঞ্জে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল মধ্যপাড়া খনি শ্রমিক সন্তানদের শিক্ষা উপবৃত্তি প্রদান ঠাকুরগাঁওয়ে মোটর সাইকেলের ধাক্কায়  বৃদ্ধার মৃত্যু  পিরোজপুরে বেগম খালেদা জিয়াকে কটূক্তি ও কেন্দ্রিয় ছাত্রদলের সভাপতি’র উপরে মামলা নির্যাতনের প্রতিবাদে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তির প্রতিবাদে সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের বিক্ষোভ  জেলা তথ্য অফিস আয়োজনে সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রম প্রচারণায় হাইমচরে মহিলা সমাবেশ পার্বতীপুরে ল্যাম্ব হাসপাতাল কতৃক টর্নেডো কবলিত ১০ পরিবারকে সহায়তা প্রদান  চান্দ্রায় ইউনিয়ন পরিষদে নিবন্ধিত জেলেদের মাঝে চাউল বিতরণ একজন কবি ও লেখকের চোখে অঞ্জনা খান মজলিস

তিন শ্রেণির নামাজি জাহান্নামে যাবে

-তিন শ্রেণির নামাজি জাহান্নামে যাবে… ◾এমন তিন শ্রেণি সম্পর্কে এখানে বর্ণনা করা হলো—

🔘১. যারা অলসতা করে সঠিক সময়ে নামাজ আদায় করে না, তাদের নামাজ কবুল হবে না। তাদের জন্য পরকালে শাস্তি রয়েছে। পবিত্র কোরআনে ইরশাদ হয়েছে, ‘অতঃপর দুর্ভোগ ওই সব মুসল্লির জন্য, যারা তাদের নামাজ সম্পর্কে উদাসীন।’ ______(সুরা, মাউন, আয়াত : ৪-৫) এ আয়াতের ব্যাখ্যায় তাফসিরবিদরা লিখেছেন, এরা হলো সেইসব লোক, ‘যারা নামাজ থেকে উদাসীন ও খেল-তামাশায় ব্যস্ত।’ উদাসীন লোকদের মধ্যে একদল এমন আছে, যারা রুকু-সিজদা, ওঠা-বসা যথাযথভাবে করে না। কেরাত, দোয়া ও তাসবিহ যথাযথভাবে পাঠ করে না। কোনো কিছুর অর্থ বোঝে না বা বুঝবার চেষ্টাও করে না। আজান শোনার পরেও যারা অলসতাবশে এবং নামাজে দাঁড়িয়ে অমনোযোগী থাকে।

🔘২. যারা দায়সারাভাবে নামাজ পড়ে এবং নামাজের বিধি-বিধানগুলো যথাযথভাবে পালন করে না। আবু হুরায়রা (রাঃ) বলেন, ‘রাসূল (সাঃ) মসজিদে প্রবেশ করেন। তখন জনৈক ব্যক্তি মসজিদে প্রবেশ করে নামাজ আদায় শেষে রাসূলুল্লাহ্ (সাঃ)-কে সালাম দিল। তিনি সালামের জবাব দিয়ে বলেন, তুমি যাও, পুনরায় নামাজ আদায় করো। কেননা তুমি নামাজ আদায় করোনি। এভাবে লোকটি তিনবার নামাজ আদায় করল। রাসূল (সাঃ) তাকে তিনবারই ফিরিয়ে দিলেন। তখন লোকটি বলল, হে আল্লাহর রাসূল! যিনি আপনাকে সত্য সহকারে প্রেরণ করেছেন, তাঁর কসম করে বলছি, এর চাইতে সুন্দরভাবে আমি নামাজ আদায় করতে জানি না। অতএব আমাকে নামাজ শিখিয়ে দিন! অতঃপর রাসূলুল্লাহ্ (সাঃ) বলেন, ‘যখন তুমি নামাজে দাঁড়াবে তখন তাকবির দেবে। তারপর কোরআন থেকে যা পাঠ করা তোমার কাছে সহজ মনে হয়, তা পাঠ করবে। তারপর ধীরস্থিরভাবে রুকু করবে। অতঃপর সোজা হয়ে দাঁড়াবে। তারপর ধীরস্থিরভাবে সিজদা করবে। অতঃপর মাথা উঠিয়ে সোজা হয়ে বসবে। আর প্রত্যক নামাজ এভাবে আদায় করবে।’ ____________(বুখারি-৭৫৭) অন্য হাদিসে রাসূলুল্লাহ্ (সাঃ) ইরশাদ করেছেন, ‘মানুষের মধ্যে সর্বাপেক্ষা বড় চোর ওই ব্যক্তি যে তার নামাজ চুরি করে। সাহাবিরা জিজ্ঞেস করলেন, হে আল্লাহর রাসূল! সে কিভাবে নামাজ চুরি করে? তিনি বলেন, সে নামাজে রুকু ও সিজদা পূর্ণ করে না।’ ____________(মুসনাদে আহামাদ-২২৬৯৫) রাসূলুল্লাহ্ (সাঃ)-এর ভাষায় বড় চোর হচ্ছে যারা নামাজের মধ্যে চুরি করে। পার্থিব জীবনে মানুষ মানুষের ধন-সম্পদ, টাকা-পয়সা চুরি করে, এটাকে সামান্য চুরি বলা যেতে পারে। কিন্তু যে ব্যক্তি নিজের মহামূল্যবান সম্পদ, জান্নাতে যাওয়ার পুঁজি, শ্রেষ্ঠতম ইবাদত চুরি করে সে-ই প্রকৃতপক্ষে বড় চোর।

🔘৩. যারা লোক দেখানো নামাজ আদায় করে। মহান আল্লাহ্ বলেন, ‘যারা লোক দেখানোর জন্য তা করে।’ _____________(সুরা মাউন, আয়াত : ৬) মুনাফিকরা মানুষকে দেখানোর জন্য নামাজ পড়ে। যেমন— মহান আল্লাহ্ অন্য আয়াতে বলেছেন, ‘নিশ্চয়ই মুনাফিকরা আল্লাহকে ধোঁকা দেয়, আর তিনিও তাদের ধোঁকায় ফেলেন। যখন ওরা নামাজে দাঁড়ায়, তখন অলসভাবে দাঁড়ায়—লোক দেখানোর উদ্দেশ্যে। আর তারা আল্লাহকে অল্পই স্মরণ করে।’ ______________(সুরা নিসা, আয়াত : ১৪২) মহান আল্লাহ্ লোক-দেখানো ইবাদতকারীকে তার আমলসহ প্রত্যাখ্যান করেন। হাদিসে কুদসিতে এসেছে, মহান আল্লাহ্ বলেন, ‘আমি অংশীবাদিতা (শিরক) থেকে সব অংশীদারের তুলনায় বেশি মুখাপেক্ষীহীন। যে ব্যক্তি কোনো আমল করে এবং তাতে অন্যকে আমার সঙ্গে শরিক করে, আমি তাকে ও তার আমলকে বর্জন করি।’ ________________(মুসলিম-২৯৮৫) মহান আল্লাহ্ আমাদের যথাযথভাবে নামাজ আদায় করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

নিউজটি শেয়ার করুন


© All rights reserved © greenbanglanews.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD